আজ

  • মঙ্গলবার
  • ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশিরা ভিসা ছাড়াই ৩৮ দেশে যেতে পারবেন

আপডেট : সেপ্টেম্বর, ৯, ২০১৮, ৪:৩৫ অপরাহ্ণ


স্টাফ রিপোর্টার>>>ওমর আলম
বিদেশ ভ্রমণ মানুষের অন্যতম স্বপ্নগুলোর মধ্যে একটি। তবে নিজ দেশের সীমানা পাড়ি দিতে হলে দরকার বৈধ পাসপোর্ট এবং ভিসা। তবে বিশ্বের অনেক দেশ আছে যেখানে ভিসার দরকার হয় না। শুধু পাসপোর্ট হলেই ভিন দেশে প্রবেশ করা যায়। 
এ তালিকায় নাম আছে বাংলাদেশেরও। বাংলাদেশি পাসপোর্ট থাকলে আপনি বিশ্বের ৩৮টি দেশে কোনো ভিসা ছাড়াই প্রবেশ করতে পারবেন। তবে আগে এ সংখ্যা আরও বেশি ছিল। 
ক্রমশ বাংলাদেশের পাসপোর্টের ওজন কমছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা দ্য হ্যানলি অ্যান্ড পার্টনার্স। সংস্থাটি সম্প্রতি বিশ্বের ২০০টি দেশের ওপর গবেষণা জরিপ চালিয়ে একটি মূল্যায়ন সূচক তৈরি করেছে।
যেখানে বাংলাদেশের অবস্থান সম্পর্কে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। সূচকটিতে বিভিন্ন দেশের পাসপোর্টের মূল্যায়ন তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থানের অবনমন ঘটেছে। 

বাংলাদেশ আগে ছিল ৯৫তম স্থানে এবং এখন ৯৭তম স্থানে নেমে এসেছে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী বাংলাদেশি পাসপোর্টের মূল্যায়ন ওজন কমেছে। বাংলাদেশের সঙ্গে একই সূচকে আছে লেবানন, ইরান, কসোভো।
আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহন সংস্থার (আইএটিএ) ভ্রমণ তথ্যভাণ্ডারের সহযোগিতা নিয়ে প্রতিবছর হ্যানলি অ্যান্ড পার্টনার্স সর্বশেষ এ সূচক তৈরি করছে। দেশওয়ারি নম্বর (স্কোর) দেওয়া রয়েছে সূচকে।
এ নম্বরটি হচ্ছে একটি দেশ আগে থেকে ভিসা ছাড়া বা আগমনী ভিসা (ভিসা অন অ্যারাইভাল) নিয়ে বিশ্বের কতটি দেশে যেতে পারেন তার ওপর নির্ভর করে।

সূচক তালিকায় সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্ট জাপান ও সিঙ্গাপুরের। দেশ দুটির পাসপোর্টেই যাওয়া যায় ১৮০টি দেশে। আর সবচেয়ে দুর্বলতম পাসপোর্টের দেশ আফগানিস্তান। দেশটির পাসপোর্টে যাওয়া যায় ২৪টি দেশে।

আফগানিস্তানের ওপরেই আছে ইরাক। ভিসা ছাড়াই ২৭টি দেশে যেতে পারেন ইরাকের মানুষ। এছাড়া সিরিয়া রয়েছে ১০৩তম স্থানে।
শেষ থেকে চার নম্বরে আছে পাকিস্তান। ১০২ স্কোর পাওয়া পাকিস্তানের লোকজন ভিসা ছাড়াই যেতে পারেন ৩০টি দেশে।এদিকে আর্থিক খাতের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান আরটন ক্যাপিটাল প্রভাবশালী পাসপোর্টের তালিকা তৈরি করেছে, যেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ৬৭তম।  
কোনো দেশের পাসপোর্টধারী ভিসা ছাড়াই অন্য দেশের যাওয়ার সংখ্যার ভিত্তিতে এই তালিকা করা হয়েছে। 

পাসপোর্টের প্রভাবের তালিকায় সার্কভুক্ত দেশগুলোর অবস্থান হলো, আফগানিস্তান ৭৯ (পূর্বে ভিসা লাগবে না ৩৮ দেশে), ভারত ৫৯ (ভিসাহীন ৫৯), পাকিস্তান ৭১ (ভিসাহীন ৪৬), মালদ্বীপ ৫৩ (ভিসাহীন ৬৫), নেপাল ৭৯ (ভিসাহীন ৩৮), ভুটান ৭৯ (ভিসাহীন ৪০), শ্রীলংকা ৭০ (ভিসাহীন ৪৭)। 
ওই তালিকায় বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী পাসপোর্ট হলো যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের। তালিকায় এক নম্বরে থাকা দেশ দুটির পাসপোর্ট দিয়ে ভিসা ছাড়াই ১৪৭টি দেশে যাওয়া যায়। 
আর তালিকার একদম তলানিতে ৮০তম অবস্থানে আছে সাওটম ও প্রিন্সিপে, ফিলিস্তিন, সলোমন আইল্যান্ড, মিয়ানমার ও দক্ষিণ সুদান। এই দেশগুলোর পাসপোর্টে মাত্র ২৮টি দেশে ভিসা ছাড়া প্রবেশাধিকার আছে। 

বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীদের ৫০টি দেশে ভিসা ছাড়াই প্রবেশের অনুমতির কথা বলা হলেও পার্সপোর্ট ইনডেস্ক ডট অর্গ দেশগুলোর তালিকা প্রকাশ করেনি। 
তবে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা দ্য হ্যানলি অ্যান্ড পার্টনার্স বলছে বাংলাদেশি পাসপোর্ট থাকলে বিশ্বের ৩৮টি দেশে ভিসা ছাড়াই প্রবেশ করা যাবে। তাদের তালিকা নিচে দেয়া হলো। 
এশিয়ার মধ্যে রয়েছে-
ভুটান,  ইন্দোনেশিয়া,  মালদ্বীপ,  নেপাল,  শ্রীলঙ্কা ও  পূর্ব তিমুর।
আফ্রিকার মধ্যে রয়েছে- 
কেপ ভার্দ, কমোরো দ্বীপপুঞ্জ,  জিবুতি,  গাম্বিয়া,  গিনি বিসাউ,  কেনিয়া,  লেসোথো,  মাদাগাস্কার,  মরিশিয়া,  মোজাম্বিক,  সিসিলি,  সেন্ট হেলেনা,  টোগো,  উগান্ডা।
আমেরিকার মধ্যে রয়েছে-
বলিভিয়া। 
ওশেনিয়া অঞ্চলের মধ্যে রয়েছে-
কুক আইল্যান্ডস,  ফিজি,  মাইক্রোনেশিয়া,  দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় নিউই,  সামাউ ও  ভানুয়াতু।
ক্যারিবীয় অঞ্চলের মধ্যে রয়েছে- 
বাহামা,  বার্বাডোজ,  ডোমিনিকা,  গ্রেনাডা,  হাইতি,  জামাইকা,  সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস,  সেন্ট ভিনসেন্ট,  ত্রিনিদাদ ও  ব্রিটিশ ভার্জিনিয়া আইল্যান্ড।
প্রসঙ্গত, বিশ্বব্যাপী পাসপোর্টের মূল্যায়ন ও ক্ষমতায়ন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা দ্য হ্যানলি অ্যান্ড পার্টনার্সের প্রকাশিত পূর্ণাঙ্গ ইনডেক্সের তালিকা দেখা যাবে তাদের ওয়েব সাই।