আজ

  • বৃহস্পতিবার
  • ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সিলেটে বিএনপির সভাপতির বাসা থেকে আটক ৫, পুলিশের গুলি

আপডেট : সেপ্টেম্বর, ১৭, ২০১৮, ৫:১৮ অপরাহ্ণ

সিলেট  প্রতিনিধি>>>

সিলেটে বিএনপি সভাপতির বাসা থেকে ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। জব্দ করেছে ৩টি মোটরসাইকেল ও ৩টি পাসপোর্র্ট। এসময় ছাত্রদলের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা ও ধাক্কাধাক্কি হলে পুলিশ ১২ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে।

রোববার সন্ধ্যায় নগরীর সোবহানীঘাট এলাকায় থাকা জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের শামীমের বাসায় এই অভিযান চালায় পুলিশ।

পুলিশের দাবি, ছাত্রদল নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে ৩ পুলিশ সদস্যকে আহত করার পর গুলি ছোঁড়া হয়েছে। আটক করা হয়েছে হামলাকারীদের।

তবে বিএনপির দাবি, তারা দোয়া মাহফিল থেকে দলের সভাপতির বাসায় চা খেতে গেলে পুলিশ বাসাটি ঘেরাও করে এবং কয়েকজনকে আটক করে নিয়ে যায়। তবে পুলিশ ও বিএনপির নেতারা আটক ৫ জনের নাম জানাতে পারেননি।

সিলেট কোতোয়ালি থানার ওসি মোশারফ হোসেন বলেন, রোববার সন্ধ্যার দিকে যতরপুর এলাকায় জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের শামীমের বাসার সামনে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা জড়ো দেখে সেখানে যায় টহল পুলিশের একটি দল। তখন উপস্থিত নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের বাকবিতন্ডা হলে পুলিশের উপর চড়াও হয় ছাত্রদল নেতারা। তখন পুলিশের ব্যবহৃত সিএনজি অটোরিকশাও ভাঙচুর করা হয়। হামলায় তিন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে ১২ রাউন্ড গুলি করে পুলিশ। এছাড়া সেখান থেকে ৫ জনকে আটক এবং ৩টি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান মোশারফ।

এদিকে সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, আমার মা মরহুমা চম্পা খানমের মৃত্যুতে রোববার বাদ আসর নগরীর সোবহানীঘাটস্থ মৌবন জামে মসজিদে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এরপর নেতৃবৃন্দ মসজিদের পাশে থাকা বিএনপি সভাপতি আবুল কাহের শামীমের বাসায় চা খেতে যান। তখন পুলিশ বাসাটি ঘেরাও করে দলের ৫ জনকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়।

এর আগে বিএনপি নেতার মায়ের দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট এম. নুরুল হক, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, সহ-সভাপতি আব্দুল মান্নান, আশিক উদ্দিন চৌধুরী, একেএম তারেক কালাম, হাজী শাহাব উদ্দিন, জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, ওসমান গণি, জেলা উপদেষ্ঠা আহমেদুর রহমান চৌধুরী মিলু, মাজহারুল ইসলাম ডালিম, হাজী বাবুল মিয়া, জেলা যুগ্ম সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুন, ইসতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদত মাহবুব চৌধুরী, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম আহমদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন, মহানগর দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম আলো, জেলা দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. ফখরুল হক, প্রচার সম্পাদক নিজাম উদ্দিন জায়গীরদার, প্রকাশনা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আল আসলাম মুমিন, যুব বিষয়ক সম্পাদক লুৎফুর রহমান, শ্রম সম্পাদক সুরমান আলী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট জুবায়ের আহমদ খান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আল মামুন খান, সমবায় সম্পাদক লিলু মিয়া চেয়ারম্যান, তাঁতী সম্পাদক ওহিদ আহমদ তালুকদার, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বজলুর রহমান ফয়েজ, হাবিবুর রহমান হাবিব, সহ-দপ্তর সম্পাদক এম.এ. মালেক, সহ-প্রচার সম্পাদক বুরহান উদ্দিন, বিএনপির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের মধ্যে অ্যাডভোকেট ইসরাফিল আলী, আব্দুল মালেক, আব্দুল লতিফ খান, দিলওয়ার হোসেন জয়, এনামুল হক মাক্কু, সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, ফারুক আহমদ, গিয়াস আহমদ মেম্বার, শামসুল হক, জেলা ছাত্রদল সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন, গুলজার আহমদ, মকসুদুল করিম নুহেল, খন্দকার ফয়েজ, মতিউর রহমান আফজল, আলী আহমদ আলম, মহানগর ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী আহসান, তোফায়েল আহমদ, জামাল আহমদ, সাহেদ আহমদ, ফয়জুর রহমান ফয়েজ, এনামুল হক পাবেল, মাসুম আহমেদ, লিটন আহমেদ, জাকির হোসেন, আব্দুর রহমান সাইজুল, আব্দুল হাসিব, আবুল কালাম, আশরাফ উদ্দিন রাজিব, রুবেল ইসলাম, মাসুম আহমদ লস্কর, আব্দুল মুকিত, শামসুদ্দীন শুভ, সুমন আহমদ বিপ্লব, হাফিজুর রশিদ প্রমুখ।