আজ

  • বুধবার
  • ৮ই জুলাই, ২০২০ ইং
  • ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আফগানদের জয়, এশিয়া কাপ থেকে ছিটকে গেল শ্রীলঙ্কা!

আপডেট : সেপ্টেম্বর, ১৮, ২০১৮, ১:৫০ পূর্বাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টার>>>

এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কাকে ৯১ রানে হারিয়ে বিস্ময় উপহার দিল আফগানিস্তান! ফলে লঙ্কানদের বিদায় করে সুপার ফোর নিশ্চিত করল আফগান বাহিনী। এদিকে বাংলাদশ ও আফগানিস্তানের কাছে টানা দুই ম্যাচে হারের সুবাদে এশিয়া কাপের মিশন থেকে ছিটকে পড়ল শ্রীলঙ্কা। এই প্রতিযোগিতার দুইবারের চ্যাম্পিয়নদের বিদায় করে বিশ্বক্রিকেটে নতুন শক্তি হিসেবে নিজেদের অবস্থান আরো সুসসংহত করল আফগানিস্তান।

এর আগে আফগানদের দেয় ২৫০ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই কুশল মেন্ডিসের উইকেট হারায় ম্যাথুসবাহিনী। স্কোরবোর্ডে কোনো রান যোগ না করেই ও টানা দ্বিতীয় ম্যাচে সাজঘরে ফিরেছেন তিনি। মুজিব উর রহমানের বলে এলবির শিকার হন তিনি। এরপর উপুল থারাঙ্গা ও ধনঞ্জয় ডি সিলভা ৫৪ রানের জুটিতে দলকে লড়াইয়ে ফেরান। এরপর ধনঞ্জয় রান আউট হলে আবারও চাপে পড়ে লঙ্কানরা। পরে থারাঙ্গা ও কুশল পেরেরা পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন। দলীয় ৮৬ রানে এ জুটি ভেঙ্গে দেন স্পিন স্টার রশিদ খান। এরপর থারাঙ্গাও বিদায় হন ৩৬ রান করে।

পরবর্তীতে জয়সুরিয়াও সুবিধা করতে পারেননি বেশিক্ষণ। ১৪ রান করে সাজঘরে ফেরেন রান আউট হয়ে। ম্যাথুসের সাথে জুটি বেঁধে কিছুটা এগিয়ে নিতে থাকেন থিসারা পেরেরা। কিন্তু এ জুটিও লঙ্কানদের স্বপ্ন পুনরুদ্ধার করতে পারেনি। অধিনায়ক ম্যাথুসকে ২২ রানে ফিরিয়ে দেন মোহাম্মাদ নবী। এরপর দ্রুত গুটিয়ে যায় শ্রীলঙ্কার টেইল এন্ড। ফলে রানের পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে     এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৪৯ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে আফগানিস্তান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭২ রানের ইনিংস খেলেছেন রহমত শাহ। এছাড়া ইহসানউল্লাহ ৪৫ ও হাশমতুল্লাহ শাহেদি ৩৭ রান করেছেন। শ্রীলঙ্কার পক্ষে ৫৫ রানে ৫ উইকেট তুলে নিয়েছেন থিসারা পেরেরা ।

টস জেতা আফগানদের পথ দেখান দুই ওপেনার শেহজাদ ও ইহসানউল্লাহ। তাদের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ভর করে নিজেদের স্কোর সংহত করতে থাকে আসগর বাহিনী । দুই ব্যাটসম্যান দেখে-শুনেই গড়ে তোলেন সাবলীল জুটি। মাঝে মাঝে সাহসে ভর করে বড় স্ট্রোক নিতেও দেখা গেছে তাদের। অবশেষে আকিলা ধনঞ্জয়ের বলে দলীয় ৫৭ রানে ভেঙ্গে যায় ওপেনিং পার্টনারশিপ। এলবির শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ৩৪ রান করা শেহজাদ।

এরপর রহমত শাহ এসে জুটি বাঁধেন ইহসানউল্লাহর সাথে। এ জুটিতেও সাবলীল ও চমৎকার ব্যাটিংশৈলী উপহার দেয় আফগানরা। ৫০ রানের এই জুটি থামে দলীয় ১০৭ রানে। এরপরও নান্দনিক ব্যাটিং উপহার দেন রহমত শাহ। তার ৭২ ইনিংসে ভর করে বড় স্কোরের দিকে যেতে থাকে আফগানরা। দলীয় ১৯০ রানে তার পতন হলেও থামেনি তারা। শেষদিকে টেইল এন্ডাররা দ্রুত আউট হলেও দলকে এনে দেন ২৪৯ রানের চ্যালেঞ্জিং টোটাল। ৬ বলে ১৩ রান করেন রশিদ খান। এছাড়া মাত্র ২ বলে ৭ রান করেন আফতাব আলম। স্লভ ওভারে ভালো বল করেছেন থিসারা পেরেরা। ৫৫ রানে তুলে নিয়েছেন ৫ উইকেট।