আজ

  • সোমবার
  • ১৩ই জুলাই, ২০২০ ইং
  • ২৯শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভালো নেই আফজাল শরীফ, সহায়তা হাত বাড়ালেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে

আপডেট : সেপ্টেম্বর, ১৮, ২০১৮, ৪:০৫ অপরাহ্ণ

 

অফিস ডেস্ক>>>

ভালো নেই পাঁচ শতাধিক চলচ্চিত্রের অভিনেতা আফজাল শরীফ। বিগত চার বছর ধরে জনপ্রিয় এই অভিনেতা মেরুদণ্ড, কোমর ও হাড়ের ব্যথায় ভুগছেন। কিছুদিন পর পর থেরাপি নিতে হচ্ছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেতাকে। এজন্য এই কমেডি অভিনেতার চিকিৎসায় ব্যয় হচ্ছে মোটা অংকের টাকা।

চিকিৎসার ভার বহন করতে বাধ্য হয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সহায়তা চাইলেন আফজাল শরীফ। আফজাল শরীফ বলেন, ’অনেক কষ্টে জীপনযাপন করছি। আগের মতো নিয়মিত শুটিং করতে পারি না। কোমরে সবসময় ব্যথা থাকে। বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকলে পা ব্যথা শুরু হয়, ফুলে যায়। এতে রক্ত সঞ্চালনের সমস্যা হয়।’

তিনি জানান, ’গত চারবছর মেরুদণ্ড, কোমরের হাড় ও পায়ের ব্যথায় ভুগছেন। দেশে এতদিন চিকিৎসা নিয়েছিলেন। কিন্তু অবস্থার উন্নতি হয়নি। ব্যথা উঠলেই থেরাপি দিতে হয়। দেশের বাইরে থেকে চিকিৎসা নিলে হয়তো সুস্থ হতে পারবেন। সেজন্য প্রয়োজন মোটা অংকের টাকা।’

আফজাল শরীফ বলেন, ’আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিল্পী বান্ধব। তিনি সবসময় শিল্পীদের পাশে থেকেছেন। আশা করছি, আমার অসুস্থতা ও চিকিৎসার বিষয়টিও তিনি দেখবেন। আমি আবার আগের মতো সুস্থ থেকে কাজ করতে চাই।’

এদিকে, গত বৃহস্পতিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) শিল্পী ঐক্যজোটের প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারণ সম্পাদক এবং নাট্যনির্মাতা জি.এম সৈকত আবেদনসহ আফজাল শরীফকে নিয়ে যান প্রধানন্ত্রীর কার্যালয়ে। ওইদিন আফজাল শরীফের চিকিৎসার খরচ বাবদ আবেদনটি জমা দেয়া হয়েছে।

নির্মাতা জি.এম সৈকত বলেন, ’কিছুদিন আগে আফজাল শরীফ আমার নির্দেশনায় দুই নাটকে কাজ করেন। তখন দেখেছি তার শারীরিক অবস্থা ভালো না। বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে পারেন না। পা ফুলে যায়। এছাড়া তার মেরুদণ্ড এবং কোমরের জয়েন্টের সমস্যা আছে।’

তিনি বলেন, ’আফজাল শরীরের আর্থিক অবস্থা কেমন সে বিষয়ে আমি ভালো জানি না। তার (আফজাল শরীফ) ইচ্ছাতে শিল্পী ঐক্য জোটের পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে নিয়ে যাই। প্রধানমন্ত্রীর অ্যাসাইনমেন্ট অফিসার মোহাম্মদ শামীম মুসফিক আফজাল শরীরের চিকিৎসার জন্য সহায়তার আবেদন গ্রহণ করেছেন। শিগগির আফজাল শরীফকে ডাকবেন প্রধানমন্ত্রী।’

আফজাল শরীফ কমেডি অভিনেতা আফজাল শরীফ (Afzal Sharif) মঞ্চ থেকে পরবর্তীতে টেলিভিশন এবং চলচ্চিত্রে আসেন। ১৯৮৪/৮৫ সালে তার অভিনয় জীবন শুরু হয়। ঢাকার আরামবাগে ট্রুপ থিয়েটারে প্রথম অভিনয় শুরু করেন আফজাল শরীফ। মঞ্চে তিনি খতবিক্ষত, জমিদার দর্পন, সাত ঘাটের কানাকড়ি, রাক্ষুসী এবং মহাপুরুষ ইত্যাদি নাটকে অভিনয় করেন। ১৯৮৮ সালে হুমায়ূন আহমেদ রচিত ও পরিচালিত টিভি ধারাবাহিক ‘বহুব্রীহি’ নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি ছোটপর্দায় আত্মপ্রকাশ করেন। বেইলী রোডে প্রথম হুমায়ূন আহমেদের সাথে আফজাল শরীফের সাক্ষাত হয় এবং বহুব্রীহি, অয়োময় প্রভৃতি ধারাবাহিক এবং পরবর্তীতে আরও খন্ড নাটকে অভিনয় করেন তিনি। ১৯৯২ সালে গৌতম ঘোষ পরিচালিত পদ্মা নদীর মাঝি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আগমন আফজাল শরীফের। বর্তমান সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় কমেডি অভিনেতা হিসেবে অভিনয় করছেন তিনি। কমেডি চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি ২০১০ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন। একটি জাতীয় দৈনিকের সাথে সাক্ষাতকারে আফজাল শরীফ তার অভিনীত প্রিয় চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে আবদার, নতজানু, বাংলার বউ প্রভৃতির নাম উল্লেখ করেন।