আজ

  • মঙ্গলবার
  • ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আইয়ুব বাচ্চুকে স্মরণ করে কনসার্টে কান্নায় ভেঙে পড়লেন জেমস

আপডেট : অক্টোবর, ১৯, ২০১৮, ২:২৭ অপরাহ্ণ


অফিস ডেস্ক>>>>
বাংলাদেশের ব্যান্ড সংগীতে আইয়ুব বাচ্চু ও জেমস দুজনেই কিংবদন্তি ও তুমুল জনপ্রিয় গায়ক। তাদের দুজনার মধ্যে সম্পর্ক প্রায় ৪০ বছরের। সুখ-দুঃখ, মান-অভিমানের মধ্যেও তারা পরস্পরকে বন্ধু ভাবতেন। হঠাৎ করে বৃহস্পতিবার সকালে মারা যান আইয়ুব বাচ্চু। তার মৃত্যু নাড়া দিলো জেমসকেও।

বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) রাতে বরগুনা জেলা স্টেডিয়ামে অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রার বাংলাদেশ শীর্ষক ‘উন্নয়ন কনসার্ট’-এ গাইতে মঞ্চে ওঠেন উপমহাদেশের বিখ্যাত রকস্টার জেমস।

রাত ৯.৫০ মিনিটে স্টেজে গাইতে উঠেই জেমস বলেন, আজকে কনসার্ট করার ইচ্ছে ছিল না। কিন্তু উপায় নেই। কনসার্ট উৎসর্গ করা হলো আমাদের সংগীতের কিংবদন্তি আইয়ুব বাচ্চুকে।

এরপর তিনি গান শুরু করার পরেই আইয়ুব বাচ্চুকে মনে করে কান্নায় ভেঙে পড়েন। ওই কনসার্টে উপস্থিত এক দর্শক চ্যানেল আই অনলাইনকে বরগুনা থেকে জানান, জেমস কান্নায় ভেঙে পড়লে ১০ মিনিট সময় নিয়ে স্টেজ থেকে নেমে যান।
এরপর স্টেজে উঠে রকস্টার জেমস বলেন, আইয়ুব বাচ্চুর সাথে আমার অনেক স্মৃতি। অনেক আগে বাচ্চু ভাই বলেছিলেন, দ্য শো মাস্ট গো অন।

এরপর জেমস একে একে পাঁচটি গান পরিবেশন করে মঞ্চ ত্যাগ করেন। গানগুলো করার সময় তার চোখেমুখে প্রিয় বন্ধু হারানোর ছাপ ভেসে বেড়াচ্ছিল।

জানা যায়, ওই কনসার্টে জেমস ছাড়াও গান করেন মেহরিন, বাপ্পা মজুমদার, পুলক। অনুষ্ঠানের শুরুতে বরগুনার স্থানীয় শিল্পীরা গান পরিবেশন করেন, পাশাপাশি নৃত্য পরিবেশন করেন। প্রায় ২০ হাজার দর্শক বরগুনা জেলা স্টেডিয়ামে এই কনসার্ট উপভোগ করেন।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৮টার দিকে নিজ বাসায় হার্ট অ্যাটাক করেন গিটার লিজেন্ড আইয়ুব বাচ্চু। তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। শুক্রবার (১৯ অক্টোবর) সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শেষ শ্রদ্ধার পরে ঢাকায় জানাজা ও পরেরদিন শনিবার চট্টগ্রামে জানাজা শেষে মায়ের কবরের পাশে সমাহিত হবেন এই গুণী সংগীত ব্যক্তিত্ব।