আজ

  • বুধবার
  • ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিএনপি মনোনয়ন বঞ্চিত জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন আইসিউতে

আপডেট : ডিসেম্বর, ১০, ২০১৮, ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ


অফিস ডেস্ক>>>
সুনামগঞ্জ-৫ আসনে বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিত জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলনকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় আইসিইউতে চিকিৎসাধীন। শনিবার (৮নভেম্বর) রাতে তাকে সিলেটের আল-হারমাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছাতক উপজেলা বিএনপি নেতা আলিম উদ্দিন। এদিকে অসুস্থ মিলনকে দেখতে রাতেই হাসপাতালে হাজির হন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

এর পূর্বে মিলনকে দলীয় মনোনয়ন না দেওয়ার প্রতিবাদে শনিবার বিকাল ৩টায় ছাতক উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ের সম্মুখে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করেন তারা সমর্থকরা। হাইকমান্ডের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা না হলে গণপদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত ছিল তাদের।

শেষ পর্যায়ে সমাবেশস্থলে আকস্মিকভাবে উপস্থিত হয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন মিলন। এসময় সভায় উপস্থিত নেতাকর্মীরাও কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে বক্তৃতা দিতে শুরু করেন মিলন। তার আবেগঘন বক্তৃতা শোনে কান্নায় ভেঙে পড়েন নেতাকর্মীরা। কর্মীদের কান্না দেখে কাঁদেন নিজেও। এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা দলীয় কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন মিছিল না করার জন্য তাদের অনুরোধ করেন। অবশেষে নিরুপায় হয়ে তিনি রাস্তায় শুয়ে পড়ে মিছিলের বাধা হয়ে দাঁড়ান। দলের সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধার সাথে মেনে নিয়ে দেশে একটি গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠায় ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত করতে দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি আহবান জানান মনোনয়ন বঞ্চিত এই বিএনপি নেতা।

সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) আসনের বিএনপির মনোনয়নবঞ্চিত তিনবারের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলনকে দলীয় মনোনয়ন না দিলেও তার বিক্ষুব্ধ কর্মীদের শান্তনা দিয়ে দেশ ও দলের বর্তমান পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে আবেগঘন বক্তৃতা দিয়ে সকলকে ধানের শীষের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি তার অনুসারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের প্রত্যাশা ছিল নির্বাচনে আমাকে যাতে মনোনয়ন দেওয়া হয়। কিন্তু সেটা না হওয়ায় আপনারা আজ দুঃখ ভারাক্রান্ত। আমি সকলের কাছে করজোড়ে অনুরোধ করে বলছি,দেশনেত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে, তারেক রহমান নির্বাসনে। এই পরিস্থিতে প্রার্থী যাকেই করা হোক না কেন সারা বাংলাদেশেই খালেদা জিয়াকে ধানের শীষের প্রার্থী মনে করতে হবে। এই দুঃসময়ে দেশ ও দলকে বাঁচাতে হবে। বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। নির্বাসন থেকে তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনতে হবে।আপনারা যুগ যুগ ধরে আমার সাথে নির্বাচন থেকে শুরু করে আন্দোলন সংগ্রামে সাহসের সাথে অংশগ্রহণ করেছেন। জনগনের দুয়ারে দুয়ারে গিয়েছেন। জেল খেটেছেন,গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। মামলা হামলায় বিপর্যস্থ হয়েছেন। সমাবেশে ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠের মিলন অনুসারী কয়েক হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, সুনামগঞ্জ-৫ আসনে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও ছাতক উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে বিএনপি। দলের পদপদবী ও মনোনয়ন নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ ছিলো মিলন ও মিজানের মধ্যে।