আজ

  • বৃহস্পতিবার
  • ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফেনীতে দিনমজুর-অসহায়দের নিত্যপণ্য দেবে জেলা প্রশাসন>জেলা প্রশাসন সূত্র

আপডেট : মার্চ, ২৮, ২০২০, ৯:৩১ অপরাহ্ণ


স্টাফ রিপোটার>>> ওমর আলম
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মানুষের চলাচল সীমিত করায় কর্মসংকটে পড়া দরিদ্র দিনমজুরদের নিত্যপণ্য দেবে জেলা প্রশাসন। আজ শনিবার বিকাল থেকেই জেলায় ত্রাণ বিতরন কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।
জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধে চলাচল সীমিত করায় কর্ম–সংকটে পড়ে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন দিনমজুররা। এই মানুষদের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। প্রথম ধাপে সরকারের ত্রাণ তহবিল থেকে জেলা সদর সহ ৬ উপজেলার জন্য ৭ লাখ টাকা ও ১শ মেট্টিক টন চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় পৌরসভার ১৮টি ওয়ার্ড ও ১২ ইউনিয়নের জন্য ২ লাখ এবং অপর ৫ উপজেলার জন্য ১ লাখ টাকা করে বরাদ্দ করা হয়েছে।
সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরীন সুলতানা জানান, হতদরিদ্র ও অসহায়দের তালিকা করতে জনপ্রতিনিধিদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সদর উপজেলার জন্য ২ লাখ টাকা ও ২৯ মেট্টিক টন চাল বরাদ্দ পেয়েছেন। প্রাথমিক পর্যায়ে ১ হাজার ২শ ত্রান প্যাকেট বিতরনের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। প্রতি পরিবারকে ৫ কেজি চাল, ৫ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল ও ১ লিটার তেল দেয়া হবে।পরিবর্তিত পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।
সোনাগাজী উপজেলা নির্বাাহী কর্মকর্তা অজিত দেব জানান, তার উপজেলার জন্য ১ হাজার ৮শ প্যাকেট করা হচ্ছে। আজ শনিবার বিকাল থেকেই বিতরন কার্যক্রম শুরু হবে।
অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মো: গোলাম জাকারিয়া বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা প্যাকেট করে দরিদ্র দিনমজুরদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এসব সহায়তা দেবেন।
দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাাহী কর্কর্তা মো: রবিউল হাসান জানান, আজ বিকালে পৌরসভার মেয়র ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের নিয়ে বৈঠক ডাকা হয়েছে। সেখানে তালিকা নিয়ে পর্যায়ক্রমে বিতরন করা হবে।
এদিকে ফুলগাজী, পরশুরাম ও ছাগলনাইয়ায় তালিকা তৈরির কাজ চলছে বলে স্ব স্ব নির্বাাহী কর্মকর্তাগন জানিয়েছেন।
জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, জেলার ৬ উপজেলার আরো ৬শ মেট্টিক টন চাল ও ১৩ লাখ ৯৮ হাজার টাকা মজুদ রয়েছে। ফেনীতে একজন মানুষও যাতে অভুক্ত না থাকে জেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিগন একযোগে কাজ করছেন।