আজ

  • বুধবার
  • ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফেনীর সোনাগাজীতে তরুণী ধর্ষণ,ধর্ষককে অভিনব কায়দায় গ্রেফতার করে পুলিশ

আপডেট : মে, ২৯, ২০২০, ২:০৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক>>>ওমর আলম

সোনাগাজীতে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক তরুণীকে (১৮) রাতভর ধর্ষণ করেছে জহিরুল ইসলাম জিয়া (২১) নামে এক বখাটে যুবক। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে উপজেলার চরদরবেশ ইউনিয়নের দক্ষিণ চরদরবেশ গ্রামের ইউপি সদস্য মো. আবু সুফিয়ানের বসত ঘরে এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের দায়ে গ্রেফতারকৃত আসামি জিয়া ইউপি সদস্য আবু সুফিয়ানের ছেলে। ধর্ষিতার পরিবার, এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, বখাটে জহিরুল ইসলাম জিয়া দীর্ঘ দিন যাবৎ একই গ্রামের এক তরুণীকে প্রেমের প্রস্তাবে উত্ত্যাক্ত করে আসছে। তার প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১টার দিকে ওই তরুণী প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে ঘর থেকে বের হলে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে জিয়ার নেতৃত্বে ৪-৫ সশস্ত্র সন্ত্রাসী গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে তরুণীকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

তার বসত ঘরের পাকা ভবনে তার শয়ন কক্ষে ওই তরুণীকে রাতভর জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। বুধবার সকালে ওই তরুণীকে ওই কক্ষ থেকে গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দিলে তরুণ ওই বখাটের বসত ঘরের সামনে অবস্থান নেয়। এসময় বখাটের পিতা আবু সুফিয়ান ও তার ভাই জোর পূর্বক তাকে ওই বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। বুধবার বিকালে ওই তরুণী বাদি হয়ে বখাটে জহিরুল ইসলাম জিয়ার নাম উল্লেখ করে ও ৪-৫জনকে অজ্ঞাত আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

সোনাগাজী মডেল থানার মামলা নং-২৪, তাং-২৭-০৫-২০২০খ্রি. ধারা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধিত /০৩) এর ৯(১)। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ বৃহস্পতিবার সকালে লুঙ্গি, গামছা ও গেঞ্জি পরে কৃষক এবং জেলে সেঝে দক্ষিণ চরদরবেশ গ্রামের হাদা ব্যাপারি ঘোনায় অভিযান চালিয়ে বখাটে জিয়াকে গ্রেফতার করে। বৃহস্পতিবার দুপুরেই ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ধর্ষিতার শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। সোনাগাজী মডেল থানার অফির্সার ইনর্চাস সাজেদুল ইসলাম পলাশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশের কুইক রেসফন্স টিম সফলতার সাথে মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। বাকীদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।