আজ

  • শুক্রবার
  • ১৪ই আগস্ট, ২০২০ ইং
  • ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পরশুরামের স্বনামধন্য অতুল মজুমদারের মিষ্টি দোকানে ওজনে কম দিয়ে ক্রেতাদের সাথে প্রতারণার অভিযোগ

আপডেট : জুলাই, ৭, ২০২০, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

সালাহ উদ্দিন মজুমদার>>>>

পরশুরাম বাজারের অতুল মজুমদারের মিষ্টি দোকানে ক্রেতাদের সাথে প্রতরণার অভিযোগ উঠেছে। মিষ্টির দাম বাজারের মুল্যের চেয়ে বহুগুন বেশী নিলেও ওজনে কম দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে পরশুরামের হাজার হাজার ক্রেতাদের কে ঠকিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ইতিপুর্বে এমন অসংখ্য ক্রেতা একাধিকবার স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি সহ সংলিষ্টদের কাছে একাধিকবার অভিযোগ দিয়েছেন।

একই কায়দার পরশুরামে ব্যাঙ্গের ছাতার মতো অলি গলিতে গড়ে উঠেছে খন্ডলের মিষ্টি দোকান, আগে পিছে ব্যাতিক্রম থাকলেও সব দোকানের মুল সাইনবোর্ড খন্ডলের আসল মিষ্টি দোকান। খন্ডলের মিষ্টি দোকানে ওজনে কম দেয়া, মিষ্টির চেয়ে মিষ্টির পানি বেশী দেয়া, নিম্ন মানের মিষ্টি তৈরী করে অভিনব কায়দার দীর্ঘদিন ধরে পরশুরামে হাজার হাজার মিষ্টি ক্রেতাদের ঠকিয়ে যাচ্ছে মিষ্টি সিন্ডিকেট।

অভিযোগ থেকে জানা গেছে অতুল মজুমদার মিষ্টি দোকানে প্রতিকেজিতে মিষ্টি দেয়া হয় মাত্র ১০টি, যার ওজন মাত্র তিনশ গ্রাম, ১শ গ্রাম প্যাকেটের ওজন, বাকী ৬শ গ্রাম মিষ্টির পানি দেয়া হয় যাহা ক্রেতাদের কোন কাজে লাগেনা। দীর্ঘদিন ধরে অভিনব কায়দায় অতুল মজুমদারের মিষ্টি দোকানে ক্রেতাদের কে প্রতারণা করে যাচ্ছেন।
অতুল মজুমদারের মিষ্টি কিনে এবার প্রতারিত হলেন পরশুরাম পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী সাজেল। শুক্রবার বক্সমাহমুদ ইউনিয়নের নিজ দলীয় নেতা আবদুর রউপের পুত্র সন্তান হওয়ায় মেয়র ৫০ কেজি মিষ্টি কিনে পাঠান, স্থানীয় নিজ দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে এবং কি আত্বীয় স্বজনদের কাছে মিষ্টি বিলাতে গিয়ে দেখেন প্রতিকেজি মিষ্টিতে মাত্র ১০টি করে মিষ্টি পাওয়া গেছে। তাৎক্ষণিক ভাবে দোকানে নিয়ে মেপে দেখেন প্রতি প্যাকেটে মাত্র সাড়ে ৩শ গ্রাম মিষ্টি রয়েছে। বাকী ৬শ গ্রাম মিষ্টির পানি ও প্যাকেটের ওজন।
পরশুরাম পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী সাজেল জানান অতুল মজুমদারের মিষ্টি দোকানে দীর্ঘদিন ধরে অসংখ্য ক্রেতা তাদের প্রতারণার অভিযোগ দিয়ে আসছিল গতকাল তিনি নিজেও তাদের কাছে প্রতারিত হলেন। বিষয়টি পরশুরাম উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনকে আইনগত ব্যাবস্থা নিতে অবহিত করা হয়েছে।
চিকিৎসকরা জানিয়েছেন অতিরিক্ত চিনি থাকায় মিষ্টির পানি স্বাস্থের জন্য খুবই ক্ষতিকারক।
পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাক্তার ইন্দ্রোজিত ঘোষ জানান মিষ্টি সংরক্ষণে রাখতে পানির সাথে বেশী পরিমানে চিনি দিয়ে গরম করে রাখা হয়। ওই পানিতে অতিরিক্ত চিনি থাকায় স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক।
অভিযুক্ত অতুল মজুমদারের মিষ্টি দোকানের স্বার্তাধিকারী বক্তব্য নিতে রবিবার সকালে তাদের দোকান বন্ধ পাওয়া যায়। এবং মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করে তাদের কারো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
স্থানীয়রা খন্ডলের সব মিষ্টি দোকান সহ অতুল মজুমদারের মিষ্টি দোকানে অভিযান পরিচালনা করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নিতে দাবি জানিয়েছেন।