আজ

  • বৃহস্পতিবার
  • ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফেনীর শহরে রামপুর খামার কর্মচারী খুনের রহস্য উদঘাটন পুলিশের দাবি পরকীয়ার জেরে মোবাইল উদ্ধার-খুন

আপডেট : জুলাই, ১৯, ২০২০, ৬:২৫ অপরাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টার>>>

ফেনী শহরে খামার কর্মচারী খুনের রহস্য উদঘাটন করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। পুলিশ সুপার খোন্দকার নুরুন্নবী ১৯ জুলাই রোববার সকালে তার কার্যালয়ের সামনে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন পরকীয়ার প্রেমের জেরে মোবাইল উদ্ধারের জন্য তিনজন মিলে ডেইরী ফার্ম কর্মচারী মোজাম্মেল হক সাগর (২৪)কে দা দিয়ে কুপিয়ে নৃশংসভাবে কুপিয়ে খুন করে তিন ব্যক্তি।

গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলো, চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ থানার অষ্টা (গুচ্ছ গ্রামের আবদুল খালেকের ছেলে মোহন প্রকাশ নয়ন (৩০), তার ভাই রাজন (৩৫) এবং মোহন প্রকাশ নয়নের স্ত্রী খালেদা আক্তার বৃষ্টি। তাদেরকে ফেনী সদর উপজেলার পশ্চিম কাজীর বাগ গ্রামের রানীর হাট মামুন ডেকোরেটর বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সুপার খোন্দকার নূরুন্নবী জানান, গত ৩০ মে ফেনী শহরের রামপুর পাটোয়ারী বাড়ির সাদেক হোসেন পাটোয়ারীর মালিকীয় শাহনাজ ডেইরী ফার্মের ভিতর থেকে মোজাম্মেল হক সাগর নামে খামার কর্মচারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। গত ২৮জুন এই হত্যা কান্ডের দায়ীত্ব দেয়া হয় জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ইউনিট ডিবিকে। ডিবির ওসি এ এন এম নুরুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশ দল তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডিবি পুলিশের তদন্ত দল রাজনকে গ্রেফতার করে।

তার দেয়া তথ্য মতে তার ভাই মোহন ও মোহনের স্ত্রীকে গ্রেফতার করে। তারা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, মোহনের স্ত্রী খালেদা আক্তার বৃষ্টির সাথে সাগরের পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। তাদের দুই জনের আপত্তিকর ছবিও সাগরের ফোনে ছিল। তাদের পরকীয়ার বিষয়টি জানাজানি হলে সম্পর্ক বিচ্ছেদ হয়। বৃষ্টি ও মোহন সাগরের কাছে থাকা ছবি গুলো সহ মোবাইল উদ্ধারে তৎপর হয়ে উঠে। ৩০ মে তারা তিনজন মিলে সাগরের মোবাইল নিয়ে তার কক্ষে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে দা দিয়ে কুপিয়ে সাগরকে হত্যা করে তারা মোবাইলটি চিনিয়ে নিয়ে যায়।