আজ

  • মঙ্গলবার
  • ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফেনী পৌর এলাকার অবহেলিত দুই নারীর পাশে মহিলা কাউন্সিলর জেসমিন আক্তার

আপডেট : সেপ্টেম্বর, ১৫, ২০২০, ৭:৩৮ অপরাহ্ণ

সালাহ উদ্দিন মজুমদার>>>

ফেনী পৌর এলাকার অবহেলিত সুবিধাবঞ্চিত দুই নারীর পাশে মানবতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোসাম্মাৎ জেসমিন আক্তার।১৫ই সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সরজমিনে ওই সুবিধাবঞ্চিত নারীদের বাড়িতে গিয়ে এ মানবতা দেখান তিনি।স্থানীয়রা জানান,ফেনী পৌর ৬ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত সুবাশ বড়ালের স্ত্রী ডলি রানী বড়াল।যিনি কার্ডধারি প্রতিবন্ধী হয়েও পাচ্ছিলেন না প্রতিবন্ধী ভাতা।এমনকি প্রায় ৩০ বছর পূর্বেই তার স্বামী মারা গেছেন।গেলো ২ বছর যাবৎ ডলি প্যারালাইজডভাবে বিছানাবন্ধী হয়ে পড়ে রয়েছেন।তার ২ ছেলে বেকার হওয়ায় ডলির দুর্দশার যেন অন্ত নেই।স্থানীয়রা আরো জানান,একই এলাকার পৌর ৬ নং ওয়ার্ডের ফলেশ্বর গ্রামের বাসিন্দা গীতা রানী বনিক এর স্বামী মারা গেছেন প্রায় ২০ বছর আগে,এমনকি গীতা রানীর বয়সও হয়েছে ৭৩।তিনি কুঁজো হয়ে কোনমতে হাঁটা চলাফেরা করেন এবং শারিরীকভাবে অসুস্থ্য। অথছ তার ভাগ্যেও মিলেনি বিধবা বা বয়স্ক ভাতা।এমন তথ্য জানা মাত্র ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন কাউন্সিলর মোসাম্মাৎ জেসমিন আক্তার।
তিনি ডলি ও গীতার সাথে পৃথকভাবে কথা বলেন এবং তাদের দুঃখ-কষ্টের কথা শুনেন,এ ব্যপারে সাংবাদিকদের কাউন্সিলর মোসাম্মাৎ জেসমিন আক্তার বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার মানুষের দৌঁড়গোরায় জনসেবা পৌঁছে দেওয়া আমার একান্ত নৈতিক দায়িত্ব।ডলি রানী ও গীতা রানী যাতে দ্রুত ভাতার কার্ডের অন্তর্ভুক্ত হয়।সে বিষয়টি আমি নিশ্চিত করবো।সেই সাথে ডলি যাতে সমাজসেবা কার্যালয় থেকে প্যারালাইজড হওয়ার চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহযোগিতা পায় সে বিষয়েও আমি ডলির পরিবারকে সহযোগিতা করবো আমি যাতে নিজাম উদ্দিন হাজারি এমপি মহোদয় এবং পৌর মেয়র হাজী আলাউদ্দিন মহোদয়ের সার্বিক দিক-নির্দেশনায় এভাবে মানুষের পাশে দাড়াতে পারি।সেজন্য সকলের নিকট দোয়া কামনা করছি।